For Advertisement

কে হচ্ছেন স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের নতুন মহাপরিচালক?

১২ আগস্ট ২০২২, ২:৩২:৪৬

সরকারি চাকরির বয়স শেষ হওয়ায় গত ৭ আগস্ট অবসর গ্রহণ করেছেন স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক ডা. এ এইচ এম এনায়েত হোসেন। তাঁর অবসর নিয়ে তেমন আলোচনা না থাকলেও, কে হচ্ছেন স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের পরবর্তী মহাপরিচালক—তা নিয়ে সংশ্লিষ্ট মহলে এরই মধ্যে তৈরি হয়েছে বেশ কৌতুহল। অধ্যাপক এনায়েত হোসেনের অবসর গ্রহণের পর থেকেই সম্ভাব্য নতুন মহাপরিচালক হিসেবে শোনা যাচ্ছে অনেকের নাম।

ডিজি অবসর গ্রহণ করায় নতুন একজন তাঁর স্থলাভিষিক্ত হবেন। এ জন্য নিয়ম অনুযায়ী, প্রস্তাবনা দেওয়া হয়েছে। সেখানে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. এ কে এম আমিরুল মোরশেদ খসরু, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. আবু ইউসুফ ফকির, ঢাকা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. টিটো মিঞার নাম রয়েছে। এখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যাকে দেবেন, তিনিই মহাপরিচালক হবেন।’

এ সূত্রের দাবি, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দুইজন এডিজি এবং ঢামেক অধ্যক্ষ টিটো মিঞা ছাড়াও মহাপরিচালক পদের জন্য কয়েকজনের নাম শোনা যাচ্ছে। তারা হলেন: জাতীয় প্রতিষেধক ও সামাজিক চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানের (নিপসম‌‍) পরিচালক অধ্যাপক ডা. বায়েজীদ খুরশীদ রিয়াজ, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের (এসএসএমসি) অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. নুরুল হুদা লেলিন।

এই দুইজনের দক্ষতা ও দায়িত্বশীলতার কথা তুলে ধরে সূত্রটি জানিয়েছে, দু’জনেই নিজ নিজ ক্ষেত্রে কাজের জন্য বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছেন।

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. আবু ইউসুফ ফকির বলেন, ‘পদাধিকার বলে আমার নাম ওই প্রস্তাবনায় আছে।’

দীর্ঘদিন ধরে অধিদপ্তরে কাজ করছেন, সে হিসেবে ডিজি হওয়ার বিষয়ে আপনি কতটুকু আশাবাদী? জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি কেমন কাজ করছি, তা বলতে পারবো না। এটা মূল্যায়ন করার মালিক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যোগ্য মনে করলে তিনি আমাকে দেবেন, এখানে আমার ব্যক্তিগত কোনো দাবি নেই।’

তবে সরকার কাকে প্রধান করে তা এখনই নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। মহাপরিচালক হিসেবে এর বাইরেও নতুন কোনো নাম চলে আসতে পারে। সেজন্য অপেক্ষা করতে হবে।

For Advertisement

দৈনিক আলোর প্রতিদিন’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: